• শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন

নতুন কারিকুলাম :মূল্যায়নে আসছে অনেক পরিবর্তন

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ২৬২ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় শুক্রবার, ২৯ মার্চ, ২০২৪

নতুন শিক্ষাক্রমের স্লোগান হলো “শিখন হবে অভিজ্ঞতায় মূল্যায়ন হবে যোগ্যতায় “অর্থাৎ একজন শিক্ষার্থী প্রতি সেশন শেষে, একটি অভিজ্ঞতা শেষে এবং একটি শ্রেণীতে নির্দিষ্ট যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। যোগ্যতা অনুযায়ী একজন শিক্ষার্থীকে মূল্যায়ন করতে হবে। নতুন কারিকুলামে পরীক্ষা না থাকায় সমালোচনার ঝড় উঠেছিল অভিভাবক মহলে। মূল্যায়ন কিভাবে হবে তা নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল অভিভাবক শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে। পরীক্ষা পদ্ধতি ফিরিয়ে আনার জন্য একশ্রেণীর অভিভাবকগণ আন্দোলনে নামে। তাদের দাবি মেনে নিয়ে পরীক্ষা পদ্ধতি ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার কিন্তু একটু ভিন্নভাবে। আগের পদ্ধতিতে আর পরীক্ষা হবে না। পরীক্ষাকে এখানে মূল্যায়ন বলা হবে। মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার খসড়া চূড়ান্ত করেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) খসড়া মূল্যায়ন প্রক্রিয়া অনুযায়ী প্রতিটি বিষয়ে মিডটার্ম ও বার্ষিক চূড়ান্ত পরীক্ষা হবে ৫ ঘন্টার। ৫ ঘন্টায় হবে এসএসসি ও এইচএসসির মত পাবলিক পরীক্ষাও সকাল ১০টা থেকে এই মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার শুরু হবে চলবে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত। মাঝখানে এক ঘন্টার বিরতি। ৪ ঘণ্টা ব্যবহারিক পরীক্ষা এবং এই ব্যবহারিকে শিক্ষার্থীরা দলীয় কাজ ও একক কাজ করবে।শেষ এক ঘন্টায় হবে তত্ত্বীয় পরীক্ষা। তথ্য ও পরীক্ষার উত্তরপত্র আবার সংশ্লিষ্ট বোর্ডে পাঠানো হবে।এছাড়া ধারাবাহিক মূল্যায়ন নতুন কারিকুলামের আলোকে হবে। আগের কারিকুলামে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিয়েছে ৩ ঘণ্টায় কিন্তু এবারের নতুন কারিকুলামে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন প্রক্রিয়া চলবে ৫ ঘন্টা । এতে শিক্ষার্থীদের মনে পরীক্ষা-ভীতি দূর হবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে সংশয়। অভিভাবক ও শিক্ষকদের মন রয়েছে নানা প্রশ্ন। পরীক্ষার জন্য থাকছে না মার্কিং সিস্টেম ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে থাকবে না অ+ পাওয়ার অসুস্থ প্রতিযোগিতা। শিক্ষকরা ফলাফল কে তিনটি ভাগে বিভক্ত করবে ভালো অর্জনের পথে প্রাথমিক পর্যায়ে আগামী জুন মাস থেকেই স্কুলগুলো এই প্রক্রিয়ায় শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করবে। এর আগে সবকিছু চূড়ান্ত করবে জাতীয় শিক্ষাক্রম বোর্ড। সে সাথে প্রস্তুতি নিতে হবে শিক্ষকদের।শিক্ষকদের স¤পূর্ণ বিষয়টি ভালোভাবে আয়ত্ত করে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝে উপস্থাপন করতে হবে যেন কোন ধরনের অপপ্রচার না হয়।

সালমা জামান পপি
সহকারী শিক্ষক (বিজ্ঞান)
দেবিদ্বার মফিজ উদ্দিন আহমেদ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।
দেবিদ্বার, কুমিল্লা।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ