টাঙ্গাইলের মধুপুরে শেখ রাসেলের ৬০তম জন্মদিন পালিত করা হয়

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ৯১ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২৩

মধুপুর প্রতিনিধি:
শেখ রাসেল দীপ্তিময়, নির্ভীক নির্মল দুর্জয়’ এই উপপাদ্যকে সামনে রেখে টাঙ্গাইলের মধুপুরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৬০ তম জন্মদিন পালিত হয়েছে। বুধবার (১৮ অক্টোবর) সকাল ৯টায় মধুপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বরে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে দোয়া ও বর্ণাঢ্য র্র্যালী বের করা হয়।এ সময় উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীমা ইয়াসমীন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরোয়ার আলম খান আবু, পৌর মেয়র সিদ্দিক হোসেন খান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শরীফ আহমেদ নাসির, সহকারী কমিশনার (ভুমি) জাকির হোসাইন, আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এডভোকেট ইয়াকুব আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ডাঃ মীর ফরহাদুল আলম মনি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক জিহাদি, মহিষমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন, কুড়ালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আঃ মান্নান, অরনখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আঃ রহিম, বেরিবাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জুলহাস উদ্দিন সহ আওয়ামীলীগের অন্যান্য সহযোগী অঙ্গ সংগঠন এবং বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরবর্তীতে বাদ এশার পর উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে শেখ রাসেলের স্মৃতি চারণে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত দোয়া মাহফিল ও কেককাটার আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট ভাই শেখ রাসেল ১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর ধানমন্ডির ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু ভবনে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মানবতার শত্রু ঘৃণ্য ঘাতকদের নির্মম বুলেট থেকে রক্ষা পাননি শিশু শেখ রাসেল। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে নরপিশাচরা নির্মমভাবে তাকেও হত্যা করেছিল। তিনি ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ছিলেন।শিশু রাসেলের জীবন সম্পর্কে শিশু-কিশোরদের কাছে তুলে ধরতে তার জন্মদিনকে ‘শেখ রাসেল দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এ বছর রাষ্ট্রীয়ভাবে তৃতীয়বারের মতো ‘শেখ রাসেল দিবস’ পালিত হলো।১৯৭১ সালে রাসেল তার মা ও দুই বোনসহ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ধানমন্ডি ১৮ নম্বর সড়কের একটি বাড়িতে বন্দি জীবন কাটিয়েছেন। পিতা বঙ্গবন্ধু তখন পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি এবং বড় দুই ভাই শেখ কামাল ও শেখ জামাল চলে গেছেন মুক্তিযুদ্ধে। মা ও বোনসহ পরিবারের সদস্যরা ১৯৭১ সালের ১৭ ডিসেম্বর মুক্ত হন। রাসেল ‘জয় বাংলা’ বলে ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন। বাইরে তখন চলছে বিজয়-উৎসব।শেখ রাসেলের ভুবন ছিল তার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাতা বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব, বোন শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা এবং ভাই শেখ কামাল ও শেখ জামালকে ঘিরে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ