• বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৮:৩৫ অপরাহ্ন

সাঁথিয়ার কচুরিপানা তৈরিকৃত হস্তশিল্প রপ্তানি হচ্ছে বিদেশে

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ৪৭ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় মঙ্গলবার, ৩০ মে, ২০২৩

এস এম আলমগীর চাঁদ ( সাঁথিয়া, পাবনা প্রতিনিধি )
নদীমাতৃক এ দেশ খালবিল, নদনদী, জলাশয়ে পরিপূর্ণ । শুষ্ঠ পরিচর্যার অভাবে এ সব জলাধার এখন কচুরিপানার অভযারন্য। অতিমাত্রায় কচুরিপানা কারনে লোকজন যেখানে পানির সুস্থ ব্যবহার ও মৎস্যচাষে ব্যর্থ প্রায় সেখানে এই কচুরিপানা থেকেই পাবনার সাঁথিয়ায তৈরি হচ্ছে মহামূল্যবান হস্তশিল্প সামগ্রী । আর এই সব হস্তশিল্প সামগ্রী বিদেশে রপ্তানি করে আয় হচ্ছে কোটি কোটি টাকা । জানা যায়, পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার ক্ষেতুপাডা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামে তৈরী হচ্ছে এ সব মহামূল্যবান হস্তশিল্প সামগ্রী । কচুরিপানা থেকে সৃষ্ট এ সব পন্যের চাহিদা দেশের চাইতে বিদেশের বাজারেই বেশি । ইউরোপ, আমেরিকার আটটি দেশে এ সব পন্য রপ্তানি করে বছরে আয় হচ্ছে কোটি কোটি টাকা । পাশাপাশি এখানে কচুরিপানা শিল্পকে ঘিরে সাথিযা উপজেলার প্রায় পাঁচশত লোকের কর্মসংস্থান y । অত্র এলাকার প্রায় তিনশত পরিবার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে এ শিল্পের সাথে জড়িত বলে জানা গেছে । সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কচুরিপানা থেকে তৈরি হচ্ছে টব,ফুলদানি, পাটি,বালতি, ট্রে ,ফুলঝুরি সহ বিভিন্ন নিত্যপ্রযোজনীয পন্য। প্রায় দুই শত পুরুষ এবং ও প্রায় চল্লিশ জন নারী তৈরী করে চলছে মনোমুগ্ধকর এ সব নিত্যপ্রযোজনীয পন্য। তারা জানান, খরচ বাদে প্রতি মাসে তাদের গড়ে ত্রিশ থেকে চল্লিশ হাজার টাকা আয় হয় এ শিল্প থেকে । সাঁথিয়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, এই শিল্পকে ঘিরে একটি প্রকল্প প্রস্তাব দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে , যাতে আরও বেশি মানুষ কে এর সাথে সম্পৃক্ত করা যায় । এ শিল্পের সাথে জড়িত জয়তুন –রফিকুল দম্পতি জানান, সরকারি ভাবে সহযোগিতা ও অল্প সুদে সরকারী ঝন পেলে এ শিল্পকে আরও উন্নত করা সম্ভব । তাই সরকার যদি আমাদের পাশে দাঁড়ায় তাহলে এলাকার অনেক মানুষের কর্মের ব্যবস্থা হবে এবং অধীক পরিমাণ কচুরিপানা সৃষ্ট পন্য বিদেশে রপ্তানি করে দেশের অর্থনীতিতে এক বিরাট অবদান রাখতে পারবে ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ