• শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

নীলফামাররীর চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশনের আইকনিক ভবন উদ্বোধনে রেলমন্ত্রী সুজন

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ৮৭ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় শনিবার, ৪ নভেম্বর, ২০২৩

নীলফামারী প্রতিনিধি:
নীলফামারীর ডোমার উপজেলার ০১ নং ভোগডাবুড়ী ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকায় অবস্থিত সর্বশেষ রেলওয়ে স্টেশন চিলাহাটি। বাংলাদেশ রেলওয়ে “ভারতের সাথে সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে চিলাহাটি এবং চিলাহাটি বর্ডারের মধ্যে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ (১ম সংশোধিত) ” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় নবনির্মিত চিলাহাটি আইকনিক রেলওয়ে স্টেশন ভবন, প্লাটফর্ম, প্লাটফর্ম শেড, ফুট ওভার ব্রীজ ও ফাংশনাল ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শুভ উদ্বোধন করেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন এমপি।শনিবার ০৪ নভেম্বর বেলা ১২ টায় স্টেশন চত্বরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।চিলাহাটি আইকনিক রেলওয়ে স্টেশন ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন আব্দুর রহিম প্রকল্প পরিচালক বাংলাদেশ রেলওয়ে, পাকশী।মহা ব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার (পশ্চিম) বাংলাদেশ রেলওয়ে রাজশাহী এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি নীলফামারী-০১ (ডোমার-ডিমলা) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আফতাব উদ্দিন সরকার, জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ, পুলিশ সুপার মোঃ গোলাম সবুর পিপিএম-সেবা এবং প্রধান প্রকৌশলী (পশ্চিম) আসাদুল হক বাংলাদেশ রেলওয়ে রাজশাহী প্রমুখ।এছাড়াও আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক সরকার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল আলম বিপিএএ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরননবী, ডোমার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদ উন-নবী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডঃ মনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল হক চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সরকার ফারহানা আকতার সুমিসহ রাজনৈতিক নের্তৃবৃন্দ, সুশীল সমাজ, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মাননীয় রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন তার বক্তব্য বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বর্হৃিরবিশ্বে মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে। এটা শুধুমাত্র সম্ভব হয়েছে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কারণে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে স্বপ্ন দেখেছিলেন গরিব দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোঁটানো এরই ধারাবাহিকতায় জননেত্রী শেখ হাসিনা সেই কাজগুলো করে যাচ্ছেন। আজকে আপনারা একটা জিনিস চিন্তা করে দেখেন, বাংলাদেশের এমন কোন জায়গা আছে যেখানে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। আজকে সেই উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজের জীবনকে বাজী রেখে যেভাবে দেশ ও জনগনের কল্যানে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আপনারা বলেন তো শেখ হাসিনাকে কতবার মেরে ফেলার জন্য ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল? কই বেগম খালেদা জিয়াকে তো একবারও মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র করা হয়নি? আজকে দৃশ্যমান উন্নয়নের মধ্যে স্বপ্নের পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল, বঙ্গবন্ধু ট্যানেল, রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ আরও অসংখ্য পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করেছেন শেখ হাসিনার সরকার। তিনি আরও বলেন স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানের ধারাকে অব্যাহত রাখতে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পূর্ণরায় আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতায় এনে স্মার্ট বাংলাদেশ নির্মানসহ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার আহবান জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ