• রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১০:৫৫ পূর্বাহ্ন

অনৈতিক সম্পর্কের প্রলোভন দেখিয়ে পরিকল্পিতভাবে বাদাম বিক্রেতাকে হত্যা

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ৭৯ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

নাটোর প্রতিনিধি:
অনৈতিক সম্পর্কের প্রলোভন দেখিয়ে পরিকল্পিতভাবে নাটোরের বাগাতিপাড়ায় বাদাম বিক্রেতা তপন চন্দ্র চৌধুরী(৩৫)কে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় মামলা হলে হত্যার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে রহস্য উন্মোচন করে হত্যার সাথে জড়িত ৫ জন আসামীকে গ্রেফতার করে র‍্যাব। আজ ২৪ সেপ্টেম্বর রোববার দুপুরে র‍্যাব-৫ সিপিসি -২ কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিং এ এই তথ্য জানান র‍্যাব-৫ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শাহরিয়ার। তিনি আরো জানান, গত ২২ সেপ্টেম্বরে সংগঠিত একটি হত্যা বাগাতিপাড়া মডেল থানার একটি চাঞ্চল্যকর মামলার ছায়া তদন্ত করে । তদন্তে র‍্যাব-৫ সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্প একটি অপারেশন দল আজ ২৪ সেপ্টেম্বর রাত দুইটার দিকে তথ্য প্রযুক্তি ও বিশেষ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে নওগাঁ জেলার আত্রাই থানা ও নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া থানা এলাকার বিভিন্ন স্থানে কোম্পানী অধিনায়ক সঞ্জয় কুমার সরকার নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে। এসময় হত্যা মামলার সন্দেহভাজন উপজেলার বাড়ইপাড়া মৃত বরোজ উদ্দিন সরকারের ছেলে মাইনুল ইসলাম (৪৫), কৃষ্ণপুর এলাকার মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে শরিফুল (৩৫),বাড়ইপাড়া এলাকার আলম মোল্লার ছেলে মিলন মোল্লা ওরফে মিলন আহমেদ (২৫) বিহারকোল এলাকার বাবুল শেখ এর ছেলে শাহাবুল শেখ (৩০), এবং বাড়ইপাড়া এলাকার আমিরুল ইসলামের ছেলে আলামিন ইসলাম (২০), পিতা-মোঃ আমিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়। উল্লেখ্য যে, লালপুর উপজেলার চং ধুপইল এলাকার তপন চন্দ্র চৌধুরী (৩৫) একজন বাদাম বিক্রেতা। প্রতিদিনের ন্যায় গত ২১ সেপ্টেম্বর বাড়ী হতে বাদাম বিক্রয়ের জন্য বাগাতিপাড়ার মালঞ্চি বাজারে আসে। সেখানে রাত্রি সাড়ে আটটার দিকে বাদাম বিক্রি শেষে একটি দর্জির দোকান ঘরে বাদামের ডালি রেখে বাড়ী যাওয়ার কথা বলে চলে যায়। ঐদিন রাত দশটার দিকে হত্যাকাণ্ডের শিকার ঔ তপন চন্দ্র চৌধুরী (৩৫) ‘কে বাড়ীতে না পাওয়ায় বড় ভাই নিতিশ চন্দ্র চৌধুরী রাতে মালঞ্চি বাজারে তপনকে খোঁজাখুঁজি করেন। কোথাও খুঁজে না পেয়ে তিনি বাড়ি চলে যান। পরের দিন লোক মারফত জানতে পারেন যে, বাগাতিপাড়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত মহিলা কলেজের দক্ষিণ পার্শ্বে নীল চড়া মাঠের আখ ক্ষেতে আইলের উপর একটি অজ্ঞাতনামা দেহ পড়ে আছে। তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে গিয়ে তপনের বড় ভাই নিতিশ মরদেহটি সনাক্ত করে পুলিশকে অবগত করে। পরে তিনি অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। উক্ত হত্যার বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের মধ্যে ব্যাপক আলোড়ন ও এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। মরদেহ উদ্ধারের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর হত্যাকারীরা এলাকা থেকে গা ঢাকা দেয়। র‍্যাব বিষয়টি আমলে নিয়ে নওগাঁ জেলার আত্রাই এবং বাগাতিপাড়ার বিভিন্ন স্থান থেকে সন্দেহভাজন পাঁচজনকে গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা তাদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে জানায়, ভিকটিমের চারিত্রিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে তারা অনৈতিক কাজের প্রলোভন দেয়। এরপর কৌশলে বাদাম বিক্রেতা তপনকে জনৈক ইয়াসিনের ফার্মের কাছে ডেকে নেয়। পরিকল্পনাকারীরা উক্ত স্থানে পূর্বে থেকেই ওৎ পেতে ছিল। ভিকটিম সেখানে যাওয়া মাত্র সকলে ভিকটিমের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং এলোপাথারী ভাবে পেটানোর এক পর্যায়ে তাকে পার্শ্ববর্তী বাগাতিপাড়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত মহিলা কলেজের দক্ষিণ পার্শ্বে আখ ক্ষেতের আইলের উপর ফেলে যায় । আটককৃত আসামীদের বাগাতিপাড়া মডেল থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ