• বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৮:৩৭ অপরাহ্ন

ইবি লেখক ফোরামের উদ্যোগে সাক্ষরতা অভিযান ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ৭০ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় শুক্রবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

ইবি প্রতিনিধি:
আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা কর্তৃক পোস্টারিং কার্যক্রম ও কুষ্টিয়া কোর্ট স্টেশন এর পার্শ্ববর্তী এলাকার ছিন্নমূল শিশুদের মাঝে ‘সাক্ষরতা অভিযান ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ কর্মসূচি’ পালিত হয়েছে। শুক্রবার (৮ সেপ্টেম্বর) ‘পরিবর্তনশীল ও শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনে সাক্ষরতার প্রসার’ এই প্রতিপাদ্যকে বাস্তবায়ন এবং বাঙালি জাতিকে নিরক্ষর মুক্ত করতে জনসচেতনতার জন্য পোস্টারিং কার্যক্রম ও সমাজে অবহেলিত এবং স্বাভাবিক শিক্ষা থেকে পিছিয়ে পড়া শিশুদের অক্ষর জ্ঞান প্রদানের জন্য বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা এমন আয়োজন হাতে নিয়েছে। সেই সাথে আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিশুদের শিক্ষা উপকরণ উপহার দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সম্মানিত সভাপতি আবু তালহা আকাশ এর নেতৃত্ব কুষ্টিয়া কোর্টস্টেশন এর পার্শ্ববর্তী এলাকায় সকাল ১০ টা ৩০ মিনিটে এই কর্মসূচী শুরু হয়ে দুপুর ১২ টা ৩০ মিনিটে সমাপ্তি হয়। সেখানে শিশুদের হাতে কলমে বর্ণমালা এবং সাক্ষর শিখানোর পাশাপাশি নিয়মিত বিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষা লাভের জন্য উদ্বুদ্ধ করা হয়। সেই সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এস এ এইচ ওয়ালিউল্লাহ, কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক সুকান্ত দাস ইবি শাখার সহ-সভাপতি শ্যামলী খাতুন সহ কার্যনির্বাহী পর্ষদের সকল সদস্যবৃন্দ। বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আবু তালহা আকাশ বলেন, ‘বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা লেখালেখির পাশাপাশি সমাজে অবহেলিত ও পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য কাজ করে আসছে। আমরা আমাদের এই কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশের সকল পর্যায়ের মানুষের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে ও নিরক্ষরতার অভিশাপ থেকে বাঙালি জাতিকে মুক্তি দিতে লেখক ফোরাম পরিবার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে’। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা তরুণদের মাঝে লেখালেখির আগ্রহ জাগ্রত করে। এছাড়া বিভিন্ন সময় অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের পাশে থেকে কাজ করে। লেখালেখির পাশাপাশি সংগঠনটি সমাজ বিনির্মাণ ও সংস্কারে কাজ করে আসছে। ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে ১৮ টি শাখার মধ্যে পরপর ৪র্থ বারের ‘বর্ষসেরা’ শাখা নির্বাচিত হয় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ