• শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৭:০১ পূর্বাহ্ন

ক্ষুধার্ত কুকুরের মুখে খাবার তুলে দিলেন বিরামপুরের একদল যুবক।

স্বাধীন ভোর ডেস্ক / ৬১৯ বার দেখা হয়েছে
প্রকাশের সময় রবিবার, ১১ জুন, ২০২৩

মো:ফাহিম সরকার
 দিনাজপুর প্রতিনিধি
বর্তমানে কুকুরকে সবাই ভয় পায়। কুকুরকে দেখলে সবাই তাড়িয়ে দেয়। কিন্তু এই প্রাণীটার যে বাঁচার অধিকার রয়েছে সেটা আমরা অনেকেই ভুলে যাই। বর্তমানে খাবার না পেয়ে এসব কুকুর বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। ফলে এসব কুকুর হিংস্র হয়ে উঠছে কিছু কিছু কুকুর মৃত্যুবরণ করছে। এর প্রধান কারণ হচ্ছে বিশুদ্ধ খাবার না পাওয়া। আমাদের দেশে কুকুর ডাস্টবিন থেকে খাবার খায়। যত ধরনের ময়লা পচা আবর্জনা খেয়ে জীবনধারণ করে। একটা সময় দেখা যাবে এই প্রাণীটাও খাবারের অভাবে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। এই প্রাণীটি যেন বিলুপ্ত না হয়ে যায় এই কারণে বিরামপুরের কিছু তরুণ এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছে। ক্ষুধার্ত কুকুরের মুখে খাবার তুলে দিয়েছে। এ বিষয়ে আরফান রিশাদ বলেন আমি আমার বন্ধু আকাশ এবং কিছু ছোট ভাইদেরকে নিয়ে এই উদ্যোক্তা গ্রহণ করি। আমরা চাই আমাদের এই উদ্যোগ দেখে যেন আরো কিছু মানুষ এগিয়ে আসে । কুকুর কোন হিংস্র প্রাণী নয় কুকুরকে ভালবাসুন। সকল কুকুরের দায়িত্ব নিতে হবে না আপনার আশেপাশে যে সকল কুকুর রয়েছে তাদেরকে এক বেলা করে খাবার দেন। তাহলে এই প্রাণীটিকে বিলুপ্তের পথ থেকে রক্ষা করা সম্ভব।এ বিষয়ে আরফান রিশাদ আরো বলেন আমাদের এমন কার্যক্রম ভবিষ্যতেও চলমান থাকবে। তাদের এমন ব্যতিক্রময় উদ্যোগ দেখে অনেকে এগিয়ে এসেছেন অনেকেই সাধুবাদ জানিয়েছেন। বর্তমানে প্রকৃতিকে ধ্বংস করছে একদল মানুষ। আবার একদল মানুষ প্রকৃতিকে বাঁচানোর চেষ্টা করছে। বর্তমানে পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছে অনেক প্রজাতির প্রাণী। এসব প্রাণীর বিলুপ্ত হওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে প্রকৃতিকে ধ্বংস করা। কুকুর মানুষের গৃহপালিত প্রাণী হওয়ার ইতিহাস: প্রায় ১৫ হাজার বছর আগে একপ্রকার নেকড়ে মানুষের শিকারের সঙ্গী হওয়ার মাধ্যমে গৃহপালিত পশুতে পরিণত হয়। তবে কারও কারও মতে কুকুর মানুষের বশে আসে ১০০,০০০ বছর আগে।অবশ্য অনেক তথ্যসূত্র অনুযায়ী কুকুরের গৃহ পালিতকরণের সময় আরও সাম্প্রতিক বলে ধারণা প্রকাশ করে থাকে। নেকড়ে ও শিয়াল কুকুরের খুবই ঘনিষ্ঠ প্রজাতি (নেকড়ে আসলে একই প্রজাতি)। তবে গৃহপালিত হওয়ার পরে কুকুরের বহু বৈচিত্র্যময় জাত  তৈরি হয়েছে, যার মধ্যে মাত্র কয়েক ইঞ্চি উচ্চতার কুকুর (যেমন চিহুয়াহুয়া) থেকে শুরু করে তিন ফুট উঁচু (যেমন আইরিশ উলফহাউন্ড) রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও সংবাদ